Total Pageviews

Its Awesome!

Friday, July 28, 2017

 7:59 PM         No comments



 শিক্ষাসফর থেকে ফেরার পথে বিমানে ছাত্রের সঙ্গে যৌনকর্মে লিপ্ত হওয়ায় নিষিদ্ধ হয়েছেন মধ্যবয়সী এক শিক্ষিকা। 

এলিয়ানর উইলসন (২৮) নামের ওই শিক্ষিকা যুক্তরাজ্যের ব্রিস্টলের একটি স্কুলে পদার্থ বিজ্ঞান পড়াতেন। বিমানের শৌচাগারে ছাত্রের সঙ্গে যৌনকর্মে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। পরবর্তীতে দেশটির ন্যাশনাল কলেজ ফর টিচিং অ্যান্ড লিডারশিপের (এনসিটিএল) একটি প্যানেল তাকে শিক্ষকতা পেশা থেকে নিষিদ্ধ করে। 
ছাত্রের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের বিষয়টি যখন সকলের দৃষ্টিগোচরে আসে যখন ঐ স্কুলের আরেক ছাত্র ঐ শিক্ষিকাকে যৌনকর্ম করার জন্য ব্লাকমেইল করার চেষ্টা করে।
প্যানেলের প্রতিবেদনে বলা হয় ২০১৩ সাল থেকে অজ্ঞাতনামা ঐ স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করেন উইলসন। স্কুলের ছাত্র এবং পিতা-মাতাদের কাছে বেশ সুনামও ছিল তার। ২০১৫ সালের জুলাই মাসে শিক্ষা সফরটি হয়েছিল। শিক্ষা সফর শেষে বিমানযোগে ফেরার সময় ছাত্রের সঙ্গে যৌনকর্ম করেন উইলসন। শিক্ষিকার সাথে যৌনকর্মে লিপ্ত হওয়া ঐ ছাত্র প্যানেলকে জানায়, শিক্ষা সফর থেকে যুক্তরাজ্যে ফেরার পথে বিমানে এক সাথে মদ পান করেন তারা। সেসময় উইলসন মাতাল হন। ছাত্রটিও পাঁচ বোতল ওয়াইন সাবাড় করেন। 
ছাত্রটি আরও জানায়, মাতাল হয়ে বিমানের শৌচাগারে গিয়ে পরস্পরকে চুমু এবং ওরাল সেক্স করেন তারা। তারপরই দুজনে অনিরাপদ যৌন সংসর্গে লিপ্ত হন। তবে শিক্ষিকা উইলসন এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন।
প্যানেল ওই ছাত্রের দেওয়া সমস্ত সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ আমলে নেয়। উইলসনের সাথে ঐ ছাত্রটির কয়েক মাসের সম্পর্ক ছিল। এসময় তারা মোবাইলে মেসেজের মাধ্যমে যোগাযোগ করতেন এবং স্কুলের বাইরে দেখা করতেন। ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ব্যাপারটি সম্বন্ধে অবগত হন এবং উইলসনের সাথে কথা বলেন। তবে সেসময় স্কুল কর্তৃপক্ষ সুনির্দিষ্ট কোন সাক্ষ্য-প্রমাণ পায়নি। পরবর্তীতে মে মাসে প্রধান শিক্ষক উইলসনের প্রতি ছাত্রের সঙ্গে যৌনকর্ম করার অভিযোগ আনলে সে অস্বীকার করে। এমনকি ঘটনার পরপরই প্রেমিক ছাত্রকে তাদের সম্পর্কের ব্যাপারে চুপ থাকতে অনুরোধ করে।.
তদন্তের পর প্যানেল বলছে, শিক্ষকতার পেশায় যে মান বা আচরণ কাম্য, তার ঘাটতি দেখা গেছে উইলসনের মধ্যে। তদন্তকালে অভিযোগ অস্বীকার করেন শিক্ষিকা। তবে অভিযোগ পাওয়ার পর তাঁকে গত বছরই চাকরিচ্যুত করে স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করে এনসিটিএলের প্যানেল। প্যানেলের এ শুনানীতে উইলসন অনুপস্থিত ছিলেন।
এদিকে প্যানেল দোষী সাব্যাস্ত করার পরপরই যুক্তরাজ্যের শিক্ষা সচিব জাস্টিন গ্রিনিংয়ের পক্ষে শিক্ষা কর্মকর্তা অ্যালান মেরিক উইলসনকে শিক্ষকতা পেশা থেকে নিষিদ্ধের ঘোষণা দেন।
সূত্র: দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট/দ্য টেলিগ্রাফ 
Reactions:

0 comments:

NetworkedBlogs

Popular Posts

Recent Posts

Text Widget

Blog Archive