Total Pageviews

Its Awesome!

Monday, July 17, 2017

 1:29 PM         No comments
আমরা কোথাও ঘুরতে গেলে তো বটেই, সামাজিক মাধ্যমেও নিয়মিতই তিন তারা, পাঁচ তারা, হোটেল এর কথা শুনি। এসব হোটেল এর আকাশ ছোঁয়া খরচ শুনে চোখ কপালেও তুলি। আসলে হোটেল রেটিং দিয়ে কি বোঝানো হয়? এটা নিয়ে শুধু আপনিই নন, কমবেশি কনফিউজড হয়ে যান অনেকেই। আসলে কোন বিচারে বা কার বিচারে রেটিংগুলো ঠিক করা হয়? কোন কোন বিষয়ে এগুলা গুরুত্ব রাখে?
 
হোটেল রেটিং বিচারে নির্দিষ্ট কোন আন্তর্জাতিক মাত্রা নেই। এগুলো বিভিন্ন দেশে কখনও ভ্রমণ ও ট্যুরিজম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর পক্ষ থেকে করা হয়, কখনও কোন প্রাইভেট কোম্পানি নিজেদের মতামত দিয়ে থাকে, কখনও রেটিং বিচারে জাতীয় পত্রিকার মতামত গ্রাহ্য করা হয়। কোন হোটেল চাইলে নিজেদের সাত রেটিংও দিয়ে বসতে পারে, মানা করা কেউ নেই।
 
তবে সরকারি মন্ত্রণালয়, প্রাইভেট কোম্পানি, জাতীয় পত্রিকা, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ট্যুর এজেন্সি, এদের সবার রেটিং মিলিয়ে একটি গড় ধারনা তৈরি হয়ে যায়।
 
আসুন, আমরা সাধারণভাবে জেনে নেই বিভিন্ন রেটিং এর হোটেলে আপনি কি ধরনের সেবা আশা করতে পারেন।
 
এক তারা হোটেলগুলোর মাঝে চকচকে ভাব একটু কমই থাকে। ছবি: সংগৃহীত।
 
এক তারা: এটা একদম প্রাথমিক থাকার ব্যবস্থা। রাতে শোবার ব্যবস্থা নিজস্ব রুম হতে পারে, শেয়ার করা ডর্মরুম হতে পারে। বাথরুমও সাধারণত শেয়ার করেই ব্যবহার করতে হয়। হোটেলের নিজস্ব খাবার ব্যবস্থা থাকে না। নিজেকে ব্যবস্থা করে নিতে হয়। সাধারণ / প্রাথমিক নিরাপত্তা আশা করা যায়। দামী মালামাল নিয়ে সাবধানে থাকাই ভাল। খরচ বেশ কম।
 
দুই তারা হোটেলগুলোর রুমগুলো বেশ ভালই হয়ে থাকে। মধ্যবিত্তদের নাগালের মাঝেই এবং সহনশীলও বটে। ছবি: সংগৃহীত।
 
দুই তারা: একক বা কাপল রুম। ডাবল খাট বা সিঙ্গেল খাট পাবেন। বাথরুম নিজেরই হবে। টিভি থাকবে রুমে এবং বিশেষ বিশেষ রুমে এসি সুবিধাও থাকতে পারে। হোটেলের নিজস্ব রেস্তরাঁ থাকতেও পারে, নাও পারে। ওয়াইফাই আশা করা যেতেই পারে। হোটেল বয় থাকবে, তবে সব ফ্লোরের জন্য নাও থাকতে পারে। রুম সার্ভিস থাকবে। সঠিক সময়ে চা বা নাস্তার কথা বলা যেতেই পারে। খরচ মাঝারি।
 
তিন তারা হোটেলগুলোতে থাকে নিজস্ব রেস্তরাঁ। ছবি: সংগৃহীত।
 
তিন তারা: পাশাপাশি রুমগুলোতে দরোজা দিয়ে যুক্ত থাকতে পারে। এসি এবং নন এসি ব্যবস্থা থাকবে। নিজস্ব রেস্তরাঁ তো থাকবেই। উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইন্টারনেট আশা করা যেতেই পারে। নিরাপত্তা তুলনামূলক অনেক ভাল। প্রতি ফ্লোরে হোটেল বয় থাকে যার কাছ থেকে আপনি সহযোগিতা নিতে পারেন চাইলেই। কনফারেন্স বা মিটিং রুম থাকতে পারে, যেখানে আপনি অফিশিয়াল কাজ কর্ম করতে পারবেন। খরচ বেশ ভালই। সস্তায় চলতে চাওয়া বিদেশীরা এখানে উঠে থাকেন।
 
চার তারা হোটেলগুলোতে থাকে একাধিক রেস্তরাঁ ও বার। ছবি: সংগৃহীত।
 
চার তারা: বিলাসবহুল ঘর। কয়েক রুমের সুইট পাবেন। একের অধিক রেস্তরাঁ পাবেন। ভিন্ন ভিন্ন ধরনের কুইজিন থাকবে সেগুলোতে। থাকবে বার, নিজস্ব মেডিকেল ফ্যাসিলিটি, ফুল-টাইম ডাক্তার, জিম, সুইমিং পুল, উন্নত সিকিউরিটি। থাকবে উন্নত কনফারেন্স রুম। কয়েকশ মানুষ এর ইভেন্ট হোস্ট করা যাবে এরকম ব্যবস্থা। রুম সার্ভিসকে দিনে রাতে যে কোন সময়ে ফোন করে বিভিন্ন রকম খাবারের অর্ডার করা যেতে পারে। যথেষ্ট খরুচে। নিজের পয়সায় এরকম জায়গায় মানুষ বেশি একটা যায় না। বিদেশি গেস্ট এর পরিমাণ অনেক বেশি হয়।
 
পাঁচ তারা: মোটামুটি সারা পৃথিবীর সবচেয়ে দামী এবং বিলাসবহুল হোটেল গুলো এই রেটিং এর আওতায় পড়ে। অত্যন্ত খরুচে। সব ধরনের সুযোগ সুবিধা, টাকা দিলে পাওয়া যায় সব ধরনের বৈধ সুখ। বিশাল এলাকা নিয়ে তৈরি। প্রতি ফ্লোরে ফ্লোরে বার, রেস্তরাঁ, ড্যান্স হল, বলার মত সব ধরনের সুযোগ সুবিধাই তারা পয়সার বিনিময়ে থাকে। অনেক হোটেলে ক্যাসিনো থাকে। জুয়ার ব্যবস্থা থাকে। আউটডোর রিক্রিয়েশনের ব্যবস্থা থাকে। সুইমিং পুল তো কয়েকটাই থাকে। আরও থাকে ইনডোর ও আউটডোর গেম এর ব্যবস্থা। এখানে অত্যন্ত বড়লোক মানুষ আর বিদেশি গেস্ট ছাড়া কাউকে সচরাচর দেখা যায় না।
 
বুর্জ আল আরব। প্রযুক্তি ও সৌন্দর্যের এক অবাক বিশ্বয়। ছবি: সংগৃহীত।
 
ছয় তারা?: আরব বিশ্বের বিশ্বয় বুর্জ আল আরব এক সময় নিজেদের ছয় তারকা দাবি করেছিল। তবে সেই দাবি অন্য রেটিং সংস্থাগুলো গ্রহণ করেনি। তবে ১০০ তলা উচু, অর্ধচন্দ্রাকৃতি এই হোটেলটি বিশ্বয় জাগাবে অনেকের মনেই।
Reactions:

0 comments:

NetworkedBlogs

Popular Posts

Recent Posts

Text Widget

Blog Archive