Total Pageviews

Its Awesome!

Friday, March 17, 2017

 8:16 PM         No comments

মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের লোগো। ছবি: সংগঠনটির ওয়েবসাইট। 



 ২০১৬ সালে দেশে ২১৪টি শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। আর ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৩০৪টি শিশু, যার মধ্যে ছয়টি ছেলেশিশুও ছিল। এছাড়া ধর্ষণের শিকার শিশুদের মধ্যে মারা গেছে ২২টি শিশু।
বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের ‘বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি ২০১৬’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। ছয়টি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি হয়েছে।
প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর ৮৩টি শিশুর বাল্যবিবাহ হয়েছে। এর মধ্যে চারটি শিশু হত্যা ও আত্মহত্যার শিকার হয়। তবে গত বছর প্রশাসনের উদ্যোগ ও শিশুরা বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছে এ ধরনের খবর ছিল ৫০টি। ২০১৫ সালে ১১টি শিশুর বাল্যবিবাহ হয় বলে খবর প্রকাশিত হয়।
গত বছর ২২১ শিশু সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়। এদের মধ্যে ১৭৩টি শিশুই মারা যায়। ৫০ শতাংশ দুর্ঘটনা ঘটে ঢাকায়, এর মধ্যে বেশির ভাগ দুর্ঘটনা ঘটে যাত্রাবাড়ীতে। এ ছাড়া পানিতে ডুবে, বজ্রপাতে, ট্রেনের নিচে পড়েসহ নানা দুর্ঘটনায় ৪৫১টি শিশু মারা যায়। সংবাদপত্রে প্রকাশিত ১১২টি সংবাদে ১৩৩টি শিশুর নিখোঁজ হওয়ার খবর প্রকাশিত হয়।
এর মধ্যে ঢাকায় ৪০ শতাংশ শিশু নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া যায়। ৮৮টি শিশুর আত্মহত্যার খবর প্রকাশিত হয় গত বছর। ঢাকা জেলায় সবচেয়ে বেশি শিশু আত্মহত্যা করে। অনুষ্ঠানে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম, কমিউনিটি পার্টিসিপেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের নির্বাহী পরিচালক মোসলেমা বারী আলোচনায় অংশ নেন।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক সদ্য পাস হওয়া বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনের বিশেষ ধারা ও বিধিমালার খসড়া নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনটি পুনর্বিবেচনা করা এবং বিশেষ ধারার বিষয়ে বিধিমালায় সবকিছু স্পষ্ট করার আহ্বান জানান। শিশুদের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য একটি শিশু কমিশন গঠনেরও সুপারিশ করেন তিনি।
Reactions:

0 comments:

NetworkedBlogs

Popular Posts

Recent Posts

Text Widget

Blog Archive