Total Pageviews

Its Awesome!

Wednesday, February 15, 2017

 12:08 PM         No comments
তিন ‘জিন’। একজন বৃদ্ধ। ৭০০ থেকে ৮০০ বছর বয়সী ‘জিন’। তার নাম মোল্লা ভাই। অপর দু’জন নারী ‘জিন’। অবিবাহিতা তরুণী সহোদর। উচ্চ শিক্ষিতা। একজন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া। ফাতেমা ও মাহিয়া মাহী। এই তিন ‘জিন’ ভণ্ডপীর আবুল কালাম আজাদ খন্দকারের (৪২) বশ মানানো। তাদের দিয়েই চলে আসছিল এই স্বঘোষিত পীরের চিকিৎসা।

বুধবার দৈনিক মানবজমিনে প্রকাশিত ‘ভণ্ড পীরের ফাঁদ, নারীদের সম্ভ্রমহানি, কোটি টাকা লোপাট’ শিরোনামে এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, তার প্রধান টার্গেট অসুস্থ বা সমস্যাগ্রস্ত ধনাঢ্য সহজ-সরল নারী। বহু শিকারই লন্ডন প্রবাসী। তারা তার কথিত এই জিনের ফাঁদে হারিয়েছে কোটি টাকা। হারিয়েছে সম্ভ্রম। তার জন্য পাগল হয়ে বিয়ে করতে যুক্তরাজ্য থেকে ছুটে এসেছে বৃদ্ধা অন্ধ নারী ভক্ত। সে নিজ কণ্ঠ নকল ও বিকৃত করেই জিনের নামে কথা বলতো। ব্যবহার করতো অন্যদের কণ্ঠও। জিন হাজিরার আসরে এক ভুক্তভোগীর কাছে ধরা পড়ে বিষয়টি। মুখ ঘুরিয়ে নারী কণ্ঠ নকল করতেই তিনি ধরে ফেলেন ভণ্ডপীরের ভণ্ডামি। এর জের ধরে অবশেষে সে এখন কারাগারে।
গত ৭ জানুয়ারি রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন নিকুঞ্জ-২ এর ১৩ নম্বর রোডের এক ভক্তের বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ১৬৪ ধারার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নিজের পাতা ভয়াবহ জিনের ফাঁদের কথা স্বীকার করে সে। তবে তার সহযোগীরা ও একাধিক অন্ধ ভক্ত তার জামিন নিতে মরিয়া।
প্রিয় সংবাদ/আশরাফ/শান্ত 
Reactions:

0 comments:

NetworkedBlogs

Popular Posts

Recent Posts

Text Widget

Blog Archive