Total Pageviews

Its Awesome!

Saturday, December 24, 2016

 12:40 PM         No comments
হাদিসে বলা হয়েছে, কেয়ামতের দিন ওইসব লোকের মুখে মাংস থাকবে না যারা কোরআন ও হাদিস শেখানোর বিনিময়ে টাকা উপার্জন করেন। কিন্তু বর্তমানে সব আলেম বা হুজুররা, টাকার বিনিময়ে কোরআন শেখান, বিভিন্ন মাহফিলে টাকার বিনিময়ে মানুষকে হাদিস শোনান। এ ব্যাপারে ইসলাম কী বলে?



সৌদি আরবের স্থায়ী ফতোয়া বোর্ডের ফতোয়া হচ্ছে, ‘কোরআন ও হাদিস শেখানোর বিনিময়ে টাকা নেওয়া জায়েজ আছে।’
১. দলিল হচ্ছে, ‘নবী (স.) এক নারীর বিবাহে মোহর নির্ধারণ করেছিলেন কোরআনের একটি সুরা। তার স্বামী তাকে কোরআনের একটি সুরা শেখাবেন, এর যে মূল্য সেটাই তার মোহর হিসেবে গণ্য করা হবে।’
২. একজন সাহাবী এক ইহুদিকে সুরা ফাতিহা পড়ে ঝাড়-ফুঁক দিয়ে বিনিময় নিয়েছেন।
৩. হাদিসে এসেছে, ‘কোরআন শেখানোর বিনিময়ে যা নেওয়া হয় তা সবচেয়ে উপযুক্ত।’
‘(إن أحق ما أخذتم عليه أجرا كتاب الله)’
আর না জায়েজের যে বিষয়টা তা হচ্ছে, টাকার বিনিময়ে কোরআন-হাদিসের হুকুম পাল্টানো, অপব্যাখ্যা করে ইসলাম বিরোধী জিনিসকে বৈধতা দেওয়া। কোরআন-হাদিসে এসব করাকে উদ্দেশ্য করেই এ কথা বলা হয়েছে। অবশ্য কিছু ওলামা ওইসব দলিলকে সাধারণভাবে গ্রহণ করে বলেন, কোনোভাবেই কোরআন-হাদিস শিক্ষা দিয়ে অর্থ নেওয়া যাবে না। ধন্যবাদ।
পরামর্শ দিয়েছেন:
মুহাম্মদ আমিনুল হক
সহযোগী অধ্যাপক
ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম।
পিএইচডি গবেষক
কিং আব্দুল আজিজ ইউনিভার্সিটি
জেদ্দা, সৌদি আরব।
Reactions:

0 comments:

NetworkedBlogs

Popular Posts

Recent Posts

Text Widget

Blog Archive