Total Pageviews

Its Awesome!

Saturday, December 31, 2016

 12:31 PM         No comments
মন ও শরীরের সম্পর্ক নিয়ে অনেক বিতর্ক প্রচলিত আছে। অনেক গবেষকেরাই এদের সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেছেন। ফিনল্যান্ডে এই বিষয়ে একটি গবেষণা হয় যেখানে ৭০০ অংশগ্রহণকারীর উপর পাঁচটি পরীক্ষা করা হয় এবং দেখানো হয় যে শরীরে বিভিন্ন অংশের উপর বিভিন্ন ধরণের আবেগ প্রভাব ফেলে। ট্র্যাডিশনাল চাইনিজ মেডিসিন আনন্দ, রাগ, দুঃখবোধ, উদ্বিগ্নতা, ভয়, গভীরভাবে চিন্তা করা এবং আতংক এই সাত ধরণের আবেগ শরীরের কোন অঙ্গের  উপর কী ধরণের প্রভাব ফেলে সে বিষয়ে জানিয়েছে। সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিই চলুন।  

১। আনন্দ
ট্র্যাডিশনাল চাইনিজ মেডিসিনের মতে, হৃদপিণ্ড আনন্দ এবং উচ্ছ্বাসের অনুভূতির সাথে জড়িত। আনন্দ আলোড়ন ও উদ্দীপনা সৃষ্টিতে সাহায্য করে। অতিরিক্ত উচ্ছ্বাস ইনসমনিয়া, ও বুক ধড়ফড় করার সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
২। রাগ         
রাগ বিরক্তিভাব, হতাশা, খিটখিটে মেজাজ এবং ক্রোধের সাথে সম্পর্কিত যা পরিতাপ ও যন্ত্রণা সৃষ্টি করতে পারে। বিশ্বাস করা হয় যে এ ধরণের আবেগ যকৃৎ ও পিত্তথলিতে সংরক্ষিত থাকে। রাগের কারণে মাথাব্যথা ও হাইপারটেনশন হয় যা পাকস্থলী এবং প্লীহার উপরও প্রভাব ফেলে।  
৩। দুঃখবোধ
দুঃখবোধ এমন এক ধরণের অনুভূতি যার কারণে মানুষ কাঁদে। এটি ফুসফুসের কাজে এবং সারা শরীরে শক্তির সরবরাহেও বাঁধা দেয়। এটি বেঁচে থাকার ইচ্ছাকে নষ্ট করে দেয় এবং শ্বসনতন্ত্রের রোগ সৃষ্টি করে। ট্র্যাডিশনাল চাইনিজ মেডিসিনের মতে, দুঃখবোধ ফুসফুসের উপর প্রভাব ফেলে।
৪। উদ্বিগ্নতা
উদ্বিগ্নতা ফুসফুসের উপরে প্রভাব ফেলার পাশাপাশি বৃহদান্ত্রের উপর ও প্রভাব ফেলে। এই ধরণের আবেগ ক্লান্তি, শ্বাসকষ্ট বা আলসারেটিভ কোলাইটিস সৃষ্টির জন্য দায়ী।
৫। ভয়   
দীর্ঘসময় ধরে গভীর ভয়ের অনুভূতি আপনার কিডনির উপর খারাপভাবে প্রভাব ফেলতে পারে। কেউ যখন ভয় পায় তখন তার প্রস্রাবের বেগ বৃদ্ধি পায়, বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে। গ্রীকমেডিসিন.নেট এর মতে, চরম ভয়ের অনুভূতির কারণে একজন মানুষ তার কিডনি ও মূত্রাশয়ের উপর নিয়ন্ত্রণ হারাতে পারেন।    
৬। গভীর চিন্তা বা ধ্যানমগ্নতা  
অতিরিক্ত চিন্তা ও মনমরাভাবের কারণেই তৈরি হয় ধ্যানমগ্নতা। এটি একধরণের শ্রমসাধ্য চিন্তার প্রক্রিয়া যার ফলে শক্তি নিঃশেষিত হয়ে যায় এবং জীবনের বেসুরো অবস্থা তৈরি করে। এই দুঃখজনক আবেগ প্লীহার উপর প্রভাব ফেলে এবং নিদ্রালুতা ও মনোযোগের অভাব সৃষ্টি করে। গ্রীকমেডিসিন.নেট এর মতে, এটি পরিপাকতন্ত্রকে সংকুচিত করে এবং পাকস্থলীর উপর প্রভাব ফেলে, যার কারণে পেট ফাঁপার ও গ্যাসের সমস্যা হতে পারে।   
৭। আতংক   
আতংক এমন এক ধরণের আবেগ যা সৃষ্টি হয় আকস্মিক ও অপ্রত্যাশিত আঘাতের কারণে। আতংক হৃদপিন্ডের উপর প্রভাব বিস্তার করে। শেন-নং.কম এর মতে, এটি দীর্ঘমেয়াদে হলে কিডনির উপর ও প্রভাব পরে।
সূত্র  টাইমস অফ ইন্ডিয়া ও লাইভস্ট্রং 
Reactions:

0 comments:

NetworkedBlogs

Popular Posts

Recent Posts

Text Widget

Blog Archive